1. info@www.dainikdeshbarta.com : bissho sangbad Online : bissho sangbad Online
  2. info@www.dainikdeshbarta.com : Dainik Desh Barta :
শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০১:৩১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বাংলাদেশ শেফ ফেডারেশনের সাথে মতবিনিময় বাংলাদেশের শেফগণ দেশে-বিদেশে সুনামের সাথে অবদান রাখছেঃ রাষ্ট্রপতি নবাগত ইউএনওর সাথে বোয়ালখালী প্রেস ক্লাবের সৌজন্য সাক্ষাৎ টেকনাফের কলেজছাত্র মুরাদ হত্যা মামলার আসামি রহিম কারাগারে কক্সবাজার সমুদ্রে গোসল করতে নেমে ডুবে গেলেন ৪ পর্যটক, নিখোঁজ ১  পটিয়া পৌরসভা সড়কের নবনির্মিত ডিভাইডারে বৃক্ষ রোপন উদ্ভোধন করলেন মেয়র আইয়ুব বাবুল। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কমিশন চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সম্মেলন প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত পলাশবাড়ীতে অটো গ্যারেজের নৈশ প্রহরীকে হত্যা করে ৫টি আটো চুরি বোয়ালখালীতে নবনিযুক্ত স্বাস্থ্য সহকারীদের বরণ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত চন্দনাইশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ডকাপ ফুটবল বালক (অনূর্ধ্ব১৭) টুর্নামেন্টের উদ্বোধন সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম বিভাগের মা সম্মেলনে বক্তারা : শিশুদের স্মার্ট ফোন ব্যবহার আমাদেরকে মেধা শূন্য জাতিতে পরিণত করবে

৫ জন আরসা সন্ত্রাসী আটক: উদ্ধার বিপুল পরিমাণ অস্ত্র, গোলাবারুদ 

  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১১ জুলাই, ২০২৪
  • ৩৩ বার পড়া হয়েছে

এন.এ সাগরঃ

গতকাল বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) বিকল ৪ টার দিকে র‌্যাব-১৫ এর কার্যালয়ে সম্মান সম্মেলন করেন।

 

গতকাল বৃহস্পতিবার র‌্যাব-১৫-এর কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য বলেন অধিনায়ক লে. কর্নেল এইচ এম সাজ্জাদ হোসেন।

 

তিনি বলেন,র‌্যাব-১৫, দায়িত্বাধীন কক্সবাজার ও বান্দরবান জেলায় বিরাজমান হত্যা, ধর্ষণ, অপহরণ, জঙ্গী দমন, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, জলদস্যু, ডাকাত, চুরি-ছিনতাই, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ও মাদকসহ দেশে বিরাজমান নানাবিধ অপরাধ নির্মূলে উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছে। একই সাথে শরণার্থী শিবিরে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মায়ানমার নাগরিকদের অপরাধ নিয়ন্ত্রণে রাখার লক্ষ্যে সার্বক্ষনিক মনিটরিং’সহ আলোচিত ও চাঞ্চল্যকর ঘটনার সাথে জড়িত অপরাধীদের গ্রেফতারে অভিযান পরিচালনা করে আসছে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বিভিন্ন সন্ত্রাসী গোষ্ঠী বিশেষ করে আরসা ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আতঙ্ক সৃষ্টি, হামলা, খুন, অপহরণ, ডাকাতি, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন ধরণের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনা করে থাকে। এরই প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১৫ গত ২০২৩ সালে ৯৪ জন এবং ২০২৪ সালে ২৪ জন আরসা সদস্য মোট ১১৮ জন আরসা সন্ত্রাসীকে ৭১টি আগ্নেয়াস্ত্রসহ গ্রেফতার করা হয়। সম্প্রতি মোছারখোলা, উনচিপ্রাং রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকাগুলোতে অপহরণের মাত্রা বেড়ে যায়। তাছাড়া বিভিন্ন ক্যাম্পে হত্যাকান্ডের সংখ্যাও বাড়তে থাকে ফলে ক্যাম্পসমূহে গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল রাতে র‌্যাব-১৫, এর অভিযানকালে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১৫ এ সন্ত্রাসী সংগঠন আরসার একদল সদস্য বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ ক্যাম্পে নাশকতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৫ এর একটি চৌকস আভিযানিক দল অদ্য ১১ জুলাই ২০২৪ তারিখ আনুমানিক ভোরবেলা ০৪.৩০ ঘটিকায় ১৫নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মোছারখোলা নামক স্থানে একটি অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে র‌্যাব আভিযানিক দল কর্তৃক সন্ত্রাসী সংগঠন আরসার ০৫ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী ০৬টি আগ্নেয়াস্ত্র ও বেশ কিছু বিভিন্ন অস্ত্রের অ্যামুনিশনসহ গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত হলেন মোঃ নেছার (৩০), (এফডিএমএন) পিতা-মৃত আব্দুল মোতালেব, ক্যাম্প-১৫, ব্লক-ডি/৩, রবি আলম (১৮), (এফডিএমএন), পিতা-আব্দুল জব্বার, ক্যাম্প-১৫, ব্লক-এইচ/৭, মোঃ আবুল কালাম (২৮), (এফডিএমএন), পিতা-মোঃ শাকের আহমেদ, ক্যাম্প-১৫ ব্লক-এইচ/১২, আবুল হোসেন (২০), (বাংলাদেশী নাগরিক) পিতা-আঃ রহমান, ক্যাম্প-৪, ব্লক-সি/২৫,মোঃ আইয়ুব (২২), (এফডিএমএন), পিতা-বাশার, ক্যাম্প-১৫ ব্লক-এইচ/৫,

গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় , ইউনুস মাঝি, মৌলভী ইব্রাহিম ও আরাফাতের নেতৃত্বে ২৫-৩০ জনের আরসার একটি গ্রুপ ক্যাম্প-১৫ এ অবস্থান করে। তারা উখিয়া ও হ্নীলার পাহাড়ী এলাকায় স্থানীয় কৃষকসহ নিরীহ লোকদের অপহরণপূর্বক মোটা অংকের টাকা আদায় করে থাকে। যে সকল স্থানীয় কৃষক পাহাড়ী এলাকায় কৃষিক্ষেতে কাজ করতে বা গরু চড়াতে অথবা বনে কাঠ সংগ্রহ করতে যায় এই সন্ত্রাসী গোষ্ঠী সুযোগ বুঝে এ সকল নিরীহ কৃষকদের অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে গহীন পাহাড়ে নিয়ে গিয়ে অমানবিক নির্যাতন করে এবং নির্যাতনের ভিডিও ও ভিকটিমের চিৎকার তার পরিবারের সদস্যদের ফোনের মাধ্যমে শুনিয়ে মুক্তিপণের টাকা আদায় করে থাকে। গ্রেফতারকৃতরা আরো জানায় যে, তাদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনা ও ব্যবহৃত অস্ত্রের অর্থের যোগানের জন্য মূলত তারা এই অপহরণের মাধ্যমে মুক্তিপণ আদায় করে থাকে।

গ্রেফতারকৃত ০৫ জন আসামীর মধ্যে আবুল হোসেন স্থানীয় বাঙ্গালী। সে মূলত আরসা সন্ত্রাসীদের অপহরণ সংক্রান্তে তথ্যদাতা। কোন কৃষকের আর্থিক সামর্থ্য রয়েছে, কাকে অপহরণ করলে মুক্তিপণ পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এই সংক্রান্তে তথ্য আরসা সন্ত্রাসীদের নিকট প্রদান করতো। তাছাড়া টেকনাফ, মহেশখালীসহ অন্যান্য জায়গা থেকে লোকাল অস্ত্র সংগ্রহে সে আরসার সদস্যদের সহযোগিতা করতো বলে আমাদের জানায়।

অভিযান পরিচালনা করে আরসা সন্ত্রাসীদের আস্তানার নিকট পৌঁছা মাত্রই র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে আরসা সন্ত্রাসীরা আভিযানিক দলের উদ্দেশ্যে গুলিবর্ষণ করতে থাকে। ফলে র‌্যাবের একজন সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়। বর্তমানে সে রামু সিএমএইচ-এ চিকিৎসাধীন রয়েছে।

গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট