1. info@www.dainikdeshbarta.com : bissho sangbad Online : bissho sangbad Online
  2. info@www.dainikdeshbarta.com : Dainik Desh Barta :
শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ১১:৩৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাংলাদেশ শেফ ফেডারেশনের সাথে মতবিনিময় বাংলাদেশের শেফগণ দেশে-বিদেশে সুনামের সাথে অবদান রাখছেঃ রাষ্ট্রপতি নবাগত ইউএনওর সাথে বোয়ালখালী প্রেস ক্লাবের সৌজন্য সাক্ষাৎ টেকনাফের কলেজছাত্র মুরাদ হত্যা মামলার আসামি রহিম কারাগারে কক্সবাজার সমুদ্রে গোসল করতে নেমে ডুবে গেলেন ৪ পর্যটক, নিখোঁজ ১  পটিয়া পৌরসভা সড়কের নবনির্মিত ডিভাইডারে বৃক্ষ রোপন উদ্ভোধন করলেন মেয়র আইয়ুব বাবুল। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কমিশন চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সম্মেলন প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত পলাশবাড়ীতে অটো গ্যারেজের নৈশ প্রহরীকে হত্যা করে ৫টি আটো চুরি বোয়ালখালীতে নবনিযুক্ত স্বাস্থ্য সহকারীদের বরণ উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত চন্দনাইশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ডকাপ ফুটবল বালক (অনূর্ধ্ব১৭) টুর্নামেন্টের উদ্বোধন সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম বিভাগের মা সম্মেলনে বক্তারা : শিশুদের স্মার্ট ফোন ব্যবহার আমাদেরকে মেধা শূন্য জাতিতে পরিণত করবে

আবারো চালু হলো চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ‘স্পেশাল ট্রেন’

  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪
  • ৪৭ বার পড়া হয়েছে

কক্সবাজার প্রতিনিধি :

ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাওয়া চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেলপথে স্পেশাল ট্রেন র্দীঘদিন বন্ধ থাকার পরও আবার চলাচল শুরু করেছে। বুধবার ১২ জুন থেকে ২৪ জুন পর্যন্ত এ স্পেশাল ট্রেনটি চালু রাখবে বলে জানা যায়।
কক্সবাজার আইকনিক রেলস্টেশন মাস্টার মো. গোলাম রব্বানি বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
তিনি জানান, এ স্পেশাল ট্রেনটি সকাল ৭ টায় চট্টগ্রাম থেকে যাত্রী নিয়ে সকাল ১০টা ২০ মিনিটে কক্সবাজার পৌঁছাবে এবং সন্ধ্যা ৭টায় আবার যাত্রী নিয়ে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবেন। যা রাত ১০ টা ২০ মিনিটে চট্টগ্রামে গিয়ে পৌঁছবেন।
এই স্পেশাল ট্রেন ঈদের পরবর্তী এক সপ্তাহে বা ২৪ জুন পযর্ন্ত চলাচল করবে। এর আগে গত এপ্রিল চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রুটে স্পেশাল ট্রেনটি চালু করেছিল রেল বিভাগ। যা গত ২৯ জুন এসে বন্ধ করে দেয়া হয়। ইঞ্জিন ও লোকো মাস্টার সংকটকে এই ট্রেন বন্ধের কারণ হিসাবে দেখিয়ে ছিল কর্তৃপক্ষ।

যাত্রীরা জানান, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার যাতায়াতে জন্য ব্যাপক জনপ্রিয় ছিল সড়ক পথ। তবে ট্রেন চালুর পর থেকে
সময় ও অর্থ সাশ্রয়, নিরাপদ এবং আরামদায়ক এই বিবেচনা বাসের তুলনায় ট্রেনের সার্ভিসটি জনপ্রিয়তা পায়।
সড়কপথে ১৪৫ কিলোমিটার দুরত্ব। সেখানে বাসে সময় লাগে ৫-৬ ঘন্টার কাছাকাছি।
এতদিন চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়ক পথের বাস গুলোতে
নন এসি বাসে ৪২০টাকা, এসি বাসে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত ভাড়া নেওয়া হতো। তবে ট্রেনের দাপটে বাস মালিক‘রা ৪২০ টাকার পরবর্তীতে ১০০ টাকা কমিয়ে ৩২০ টাকা ভাড়া ধার্য করতে বাধ্য হন।
রেল কর্তৃপক্ষের তথ্যমতে, ঢাকা-কক্সবাজার চালু থাকা দুইটি ট্রেনে চট্টগ্রামের জন্য বরাদ্দ মাত্র ২৩০টি সিট। অর্থাৎ প্রতিদিন চট্টগ্রামের ২৩০ যাত্রী দুটি ট্রেনে যাতায়তের সুযোগ পেয়ে ছিল। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার স্পেশাল ট্রেন চালু হলে যাত্রীদের জন্য ট্রেনটিতে ৭০৫টি সিট রয়েছে।

আরো জানা যায়, এই ট্রেনটি ছিল লাভজনক। ৮ এপ্রিল চালু হওয়া এই ট্রেন থেকে ৫মে পর্যন্ত মোট ২৫ দিনে ৫১ লাখ ২৫ হাজার ৩৬২ টাকার রাজস্ব আয় হয়। যা প্রতিদিনের ২ লাখ বেশি।
এই নিয়ে আলোচনার-সমালোচনার মধ্যেই ১২দিন পর আবারও স্পেশাল ট্রেন চালু হয়েছে। এটি বন্ধ না করে ধারাবাহিক করার দাবি যাত্রীদের। কক্সবাজার আইকনিক রেলস্টেশনের মাস্টার মো. গোলাম রব্বানি বলেন, ভবিষ্যতে আরও সুযোগ-সুবিধা বাড়বে। এ ছাড়া ট্রেনে সংখ্যা বাড়তেও পারে। যাত্রী সেবারমান কীভাবে বাড়ানো যাবে এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ বেশ আন্তরিক রয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট