1. info@www.dainikdeshbarta.com : bissho sangbad Online : bissho sangbad Online
  2. info@www.dainikdeshbarta.com : Dainik Desh Barta :
রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ০৬:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বৃষ্টিই তুলে দিলেন সুপার এইটে, যুক্তরাষ্ট্রকে পাকিস্তানের বিদায়। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে পটিয়ার ধলঘাট যুদ্ধ দিবসের আলোচনা সভা টাকা উড়ানো সহজ উপার্জন নয়! শিল্পপতি লোহানী সাহেবের ছেলের বাস্তব জীবনের গল্প আবারো চালু হলো চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ‘স্পেশাল ট্রেন’ এম এ রহিম দ্বিতীয় বারের মতো আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয় কেন্দ্রীয় উপ কমিটির সদস্য মনোনীত। ভেজাল খাদ্য প্রতিরোধে অন দ্য স্পট স্ক্রিনিং, মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হচ্ছে : কক্সবাজারে খাদ্যমন্ত্রী সোনাইমুড়ীতে দুর্গন্ধের সূত্রে মিল্ল মান্নানের লাশ। আপনারা আমার উপর ভরসা রাখুন ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ী-ঘর, বেড়িবাঁধ, রাস্তা ঘাট, পুল, ব্রীজ দ্রুত মেরামত করে দেবাে’ -প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা কলাপাড়ায় ব্রিজ নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। শিশুশ্রমের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে

আজ বাবার ৪০তম মৃত্যু বার্ষিকী -লায়ন মোঃ আবু ছালেহ্

  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৩০ মে, ২০২৪
  • ৩৪ বার পড়া হয়েছে

বাবা হারানোর ব্যাথা হয়তো পৃথিবীর সব থেকে বেশি কষ্টের আমার জন্য। ১৯৮৪ সালের এইদিনে আমার বাবা মরহুম মনির আহমেদ আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। বাবার অনুপস্থিতি কত কষ্ট দায়ক সেটা যার বাবা নেই সে বুঝে। আমার প্রতিটি মোনাজাতে বাবা তুমি আছো। বাবা নামক ছায়াটা জীবন থেকে হারিয়ে গেছে অনেক আগে । সৃষ্টিকর্তার দেওয়া সব থেকে বড় উপহার হচ্ছে বাবা। যার জীবনে বাবা নেই সেই জানে যে বাবা না থাকার কতটা যন্ত্রনা। বাবা নেই, বাবা আর ফিরবেও না কোনদিন। কখনো ভাবিনি শৈশবে বাবাকে হারিয়ে ফেলবো। বাবাকে হারিয়ে বুঝতে পারছি যে জীবনে কত বড় অবলম্বন টা হারিয়ে ফেলেছি। “বাবা” মাত্র দুটি অক্ষরের একটি শব্দ কিন্তু এর বিশালতা অনেক বড়। আমাদের জন্মের পর থেকেই নিঃস্বার্থভাবে যিনি আমাদের সকল চাহিদা পূরণ করতে থাকেন। সেই নিঃস্বার্থ বাবাকে নিয়ে বলার মতো কোন উদাহরণই পৃথিবীতে নেই। বাবা নামক ছাতা টা যদি মাথার উপরে না থাকে একলা পথ চলতে যে কতটা কষ্টের বাবা হীনরা বুঝে। আজকে চল্লিশটা বছর পেরিয়ে গেলো, বাবা কে দেখি না বাবা বলে ডাকি না। আজকে বাবা যদি বেঁচে থাকতো তাহলে হয়তো আমার জীবন টা আরও অনেক বেশি সুন্দর হতো। বাবা হিসেবে শ্রেষ্ঠ ছিলেন তিনি। মহান রব সবাইকে সব কিছু পরিপূর্ণ করে দেননা। এটি তারই কুদরতের এক নিয়ম। আমার ছোটবেলাটা ছিল অন্য রকম। পরিবারের সবার কাছ থেকে আদর ভালবাসা পেলেও পাওয়া হয়নি পিতৃস্নেহ। পারিনি বাবার সাথে ঈদের নামাজে যেতে। পারিনি সখের জামাটা বাবার কাছ থেকে নিতে। কোন আবদার করতে। কেউ যখন আমার সামনে তাদের বাবার কাছে কিছু চাইত তখন আমি কেন জানি নিরব হয়ে যেতাম। চোখ নিচু করে ভাবতাম আমারতো বাবা নেই। ছোট বেলা থেকে বাবার দায়িত্ব পালন করেছেন বড় ভাই। তাই কেন জানি চাওয়ার তালিকা বিস্তৃত ছিলনা। কিন্তু সেটাকে তিনি সংকুচিত হতে দেননি। পরিবারকে আগলে রেখেছেন মায়া মমতায় আর ভালবাসায়। তবুও বাবার কথা বারবার মনে পড়ে কারণ ছায়া হিসেবে যাকে পাওয়ার কথা ছিল। যার কাছে কিছু আকুলতা জানানোর ছিল তাকে হারিয়েছি সব কিছু বুঝার আগে। আমার হয়তো অনেক কিছু বাস্তবে অপরিপূর্ণ রয়ে গেল যা কখনোই পূর্ণ হবেনা। বাবা ৪০ বছর পার হয়ে গেল তোমাকে দেখিনা। এই ৪০ বছরে কত হাজার বার তোমাকে মনে করেছি তার ইয়ত্তা নেই। স্মৃতিতে, অনুভবে, চোখের সামনে তোমাকে দেখতে পাই আমার ভাবনায়। ভাল করে তোমাকে বাবা বলে ডাকতে পারিনি, তখনো বুঝার বয়স হয়নি আমার যখন হারিয়েছি তোমার স্নেহ মাখা আদর আর ভালবাসা। বাবার মর্মার্থ আমি হাড়ে হাড়ে উপলব্ধি করি আমার সন্তানদের প্রতি আমার ভালবাসায়। আজ ও তোমার জন্য চোখের অশ্রু ঝড়ে পড়ে বাবা নিরবে নিবৃতে। শুধু এই কামনা আল্লাহ যেন তোমাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করেন। রবের কাছে প্রার্থনা পৃথিবীর সকল বাবারা ভাল থাকুক। রাব্বির হামহুমা কামা রাব্বাইয়ানি সাগিরা।
লেখকঃ কবি ও সাংবাদিক

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট